কবি মিলটনের নায়ক কি সন্ত্রাসবাদী?

জীবদ্দশায় ইংরেজ কবি ও পুস্তিকাকার জন মিলটনকে নানা অভিধায় ভূষিত করা হয়েছে: স্বর্গীয় উদ্দীপনায় অনুপ্রাণিত, ঈশ্বরনিন্দুক, কঠোর নীতিপরায়ণ, দুশ্চরিত্র, স্তাবক, মতপ্রচারক এবং বিপ্লবী। ১৬৭৪ সালে কবির মৃত্যুর পর থেকেই বহু শতক ধরে এই কবিকে বিধর্মী থেকে গোঁড়া খ্রিষ্টান পর্যন্ত বিভিন্ন বিশেষণ প্রয়োগে বর্ণনা করা হয়েছে। অথচ কবির নিজের কথায় তিনি ছিলেন মানুষের মধ্যে ঈশ্বরের পথের ন্যায্যতা প্রতিপন্ন করায় সদা সচেষ্ট। এরিওপেজিটিকা’র লেখককে যেমন...

Read More

যে মানুষ স্বপ্নে জেগে রয়

“যদি কল্পনার প্রাসাদ বাতাসে গড়ে থাকো, তাহলে তোমার কাজ নষ্ট হওয়ার নয়। প্রাসাদ তো হাওয়ায় থাকারই কথা। এখন নিচের ভিত শক্ত করো।” — হেনরি ডেভিড থ্যরো আজ থেকে চল্লিশ-পঁয়তাল্লিশ বছর আগে আমাদের শৈশবে গুরুজনদের মুখে মুখে যেসব উপদেশের পুনরাবৃত্তি শুনতাম আর তা শুনতে শুনতে ক্রমশ কতগুলি ধারণা মনে গেঁথে যেত, তার মধ্যে একটা ছিল জীবনদর্শন সম্পর্কিত — যা একজন শিক্ষিত, আলোকপ্রাপ্ত মানুষ তাঁর সারা জীবন কীভাবে অতিবাহিত করবেন সেই বিষয়ে...

Read More

মলিয়ের এর মঞ্চসজ্জা

প্রবন্ধের শিরোনামটি স্ববিরোধী বলে মনে হতে পারে কারণ ধ্রুপদী ফরাসি থিয়েটারে মঞ্চসজ্জার দৈন্য এতটাই ব্যাপক, এতটাই নিরাভরণ, নিরলংকার সে থিয়েটার এবং খুব নিয়ন্ত্রিত, সীমিত দৃশ্যায়নের প্রচেষ্টাতেও তার যে প্রবল অনীহা, তাতে মঞ্চসজ্জার গুরুত্ব কোনোভাবেই চোখে পড়ে না। মনে করা হত যে ইউনিটি অব প্লেস এর বিধি অনুসারে প্রতিটি নাটকের জন্য রাখতে হবে একটিমাত্র সেট। এমনকী এই একটি সেট একই ধরনের অনেকগুলি নাটক মঞ্চস্থ করার পক্ষে যথেষ্ট মনে করা হত কারণ ধ্রুপদী...

Read More

স্মৃতি তাঁকে তাড়িয়ে বেড়ায়

স্মৃতি তাঁকে তাড়িয়ে বেড়ায় “আমি জান কারস্কি। আমার কিছু বলার আছে।” ১৯৪২ এর পোল্যাণ্ডের ওয়ারশ শহর। নাৎসি আর সোভিয়েত বাহিনীর আক্রমণে বিধ্বস্ত পোল্যাণ্ড। জান কারস্কি নামে এক ব্যক্তি পোল্যাণ্ডের গোপন প্রতিরোধ আন্দোলনের বার্তাবাহক হিসেবে কাজ করছেন। তিনি গোপনে ওয়ারশ’র ইহুদি বসতি ঘুরে এসেছেন যাতে মিত্রপক্ষকে জানাতে পারেন কীভাবে পোল্যাণ্ডে ইহুদি নিশ্চিহ্ন করার চেষ্টা চলছে। জান কারস্কি যুদ্ধ চলাকালীন সমগ্র ইউরোপ ঘুরেছেন। ইংরেজদের...

Read More

পাত্রিক মোদিয়ানো: স্মৃতির শিল্প

১৯৬৮ সালে ‘লা প্লাস দ্য লেতোয়াল’ দিয়ে যাত্রা শুরু হয়েছিল, যে যাত্রার মূল উপাদানগুলো ছিল রচনা, স্মৃতি ও বিস্মরণ। এই ডিসেম্বরে নোবেল পুরস্কার গ্রহণ অনুষ্ঠানে সেই যাত্রাকে ব্যাখ্যা করতে গিয়ে ফরাসি ঔপন্যাসিক পাত্রিক মোদিয়ানো বললেন: “এই অভিজ্ঞতা অনেকটা শীতের রাতে কালো বরফের ওপর দিয়ে গাড়ি চালানোর মত, যখন দৃশ্যমানতা প্রায় শূন্য। কিন্তু আপনার অন্য কোনো উপায় নেই, পেছনে ফেরার রাস্তা নেই, আপনাকে এগিয়ে চলতে হবে, নিজেকে এই বলে...

Read More