মলিয়ের এর মঞ্চসজ্জা

Posted by on September 20, 2018 in প্রবন্ধ | 0 comments

প্রবন্ধের শিরোনামটি স্ববিরোধী বলে মনে হতে পারে কারণ ধ্রুপদী ফরাসি থিয়েটারে মঞ্চসজ্জার দৈন্য এতটাই ব্যাপক, এতটাই নিরাভরণ, নিরলংকার সে থিয়েটার এবং খুব নিয়ন্ত্রিত, সীমিত দৃশ্যায়নের প্রচেষ্টাতেও তার যে প্রবল অনীহা, তাতে মঞ্চসজ্জার গুরুত্ব কোনোভাবেই চোখে পড়ে না। মনে করা হত যে ইউনিটি অব প্লেস এর বিধি অনুসারে প্রতিটি নাটকের জন্য রাখতে হবে একটিমাত্র সেট। এমনকী এই একটি সেট একই ধরনের অনেকগুলি নাটক মঞ্চস্থ করার পক্ষে যথেষ্ট মনে করা হত কারণ ধ্রুপদী নাট্যশিল্পে যেখানে সর্বজনীনতার জয়জয়কার, সেখানে একটি প্রাসাদ অথবা রাস্তার একটি মোড় অথবা একটি ব্যক্তিগত গৃহকোণের সঙ্গে তেমনই আরেকটি প্রাসাদ, রাস্তা অথবা গৃহের পার্থক্য খুঁজতে যাওয়া ছিল অর্থহীন। শতবর্ষ আগে ইউজেন দেপোয়া (Eugene Despois) এই বিষয়টির একটি চূড়ান্ত নির্লিপ্ত ব্যাখ্যা দিয়েছেন: ” সব ধরনের নাটকের ক্ষেত্রেই মঞ্চসজ্জা ছিল প্রায় অনুপস্থিত। এর একমাত্র ব্যতিক্রম বোধহয় যাকে বলে পিয়েস্ আ মাশিন (pièce à machine) যার বিশেষ প্রয়োগ দেখা যায় ওতেল দ্য বুরগোইন এর প্রতিদ্বন্দ্বী মারে (Théâtre du Marais) এর থিয়েটারে। পরবর্তী প্রজন্মের পণ্ডিতেরা এই মতের পরিবর্তন করার কোনো কারণ দেখেননি। আঁতোয়ান আদঁ (Antoine Adam) বলেছেন, “ধ্রুপদী নাট্যসত্ত্বার কাছে মঞ্চসজ্জার কোনো উপস্থিতি নেই।” এর থেকে বোঝা যায় যে সাধারণভাবে পণ্ডিত-গবেষকদের মতানুসারে ধ্রুপদী ফরাসি থিয়েটারের জন্য ক্ল্যাসিকাল, সর্বজনীন, অনির্দিষ্ট মঞ্চসজ্জাই যথেষ্ট ছিল।

মলিয়ের এর সমসাময়িক নাটমঞ্চ

উপরোক্ত আলোচনা থেকে এমন মনে হতে পারে যে রাসিন (১৬৩৯ – ১৬৯৯) বা মলিয়ের (১৬২২ – ১৬৭৩) এক অপার্থিব, বায়বীয় পরিবেশে কাজ করেছেন যা কেজো থিয়েটারের নিরেট বাস্তবতাকে অতিক্রম করে যায়। নাটকের মঞ্চরূপায়ণের গুরুত্ব কমে গেলে এমন ধারণা করা সহজ হয় যে নাটকটি বুঝি সাহিত্যকর্ম হিসেবেই অসাধারণ এবং খাঁটি সাহিত্যধর্মী বিশ্লেষণই নাটকের মর্মার্থ হৃদয়ঙ্গম করার একমাত্র পথ। নাটকের সাহিত্যধর্মী বিশ্লেষকদের কাছে এই ধারণাটি জনপ্রিয়।

তবু, যত সীমিতই হোক না কেন, কোনো ধরনের দৃশ্যপটের ব্যবহার মঞ্চে অপরিহার্য এবং কাউকে সেই কাজের দায়িত্ব দিতেই হয়। মলিয়ের এর সময় ওতেল দ্য বুরগোইন (Hôtel de Bourgogne) এ মঞ্চসজ্জার দায়িত্ব ছিল মিশেল লোরঁ (Michel Laurent) এর ওপর যিনি ১৬৭৮ সালে তাঁর মেমোয়ার অর্থাৎ স্মৃতিকথায় নাট্যগোষ্ঠী কর্তৃক মঞ্চস্থ প্রতিটি নাটকের দৃশ্যসজ্জার খুঁটিনাটি লিপিবদ্ধ করতে শুরু করেন। অধিকাংশ বিয়োগান্তক নাটকের ক্ষেত্রে তাঁর কাজ ছিল খুব সহজ: নাটকের প্রতিটি দৃশ্যই সংঘটিত হচ্ছে একটি প্রাসাদে। রাসিন ব্যতীত অন্যান্য নাট্যকারদের আটত্রিশটি নাটকের মধ্যে তেত্রিশটির প্রযোজনার জন্য একটি প্রাসাদের দৃশ্যপটই ছিল যথেষ্ট!

ওতেল দ্য বুরগোইন

“চারটে পাটাতন, চারটে তক্তা, দু’জন অভিনেতা, একটাই প্যাশন,” স্প্যানিশ নাট্যকার, কবি লোপ দ্য ভেগা (১৫৬২ – ১৬৩৫) এই সম্বল নিয়ে ২২০০টি নাটক সৃষ্টি করেছিলেন যার মধ্যে ৫০০টি আমাদের হাতে এসে পৌঁছেছে। এর এক শতাব্দী পরে মলিয়ের এর কমেডি অব ক্যারেক্টার এর জন্য প্রায়শই এর চেয়ে বেশি সরঞ্জামের প্রয়োজন হয়নি। মঞ্চসজ্জার ব্যাপারে আমরা যদি ওতেল দ্য বুরগোইন-এ দৃশ্যবর্ণনার নোটবই ‘মেমোয়ার অব মাহলো‘র দিকে তাকাই, তাহলে দেখব যে সেখানে মধ্যযুগের মিস্ট্রি প্লে’তে ব্যবহৃত গির্জার সম্মুখের উদ্যানে অনুষ্ঠিত নাট্যপ্রদর্শনীতে ব্যবহৃত বিভিন্ন প্রাসাদোপম অট্টালিকার সম্প্রসারিত রূপই পরিলক্ষিত হয়।

কিন্তু মঞ্চসজ্জার এই ধারাটি ধ্বংস হওয়ার পিছনে ছিল আল্পস্ পর্বতের অপর প্রান্ত থেকে আসা অত্যাশ্চর্য অপেরার অন্তর্ভুক্তি। অপেরার রাজসিক জাঁকজমক ক্রমশ নাটকের দৃশ্যাবলীকে ভাসিয়ে নিয়ে গেল, কমেডি-ব্যালে’র এই মিশ্র আঙ্গিকে। ১৬৬১ – ১৬৭৩ পর্যন্ত মলিয়ের তাঁর নাটকে লালি ও শারপঁতিয়ের নামে দুই সঙ্গীতজ্ঞ রচিত স্বরলিপি ব্যবহার করলেন, বিশেষত তাঁর সাইকি (Psyché) নাটকে (কর্নেলিয়াস এর সহযোগিতায়) এবং ভেরসাই এর সব কটি উৎসবে।

এ সত্ত্বেও ফরাসি ভাস্কর পিয়ের লপোত্র (১৬৫৯ – ১৭৪৪) এর একটি খোদাইয়ের কাজ থেকে জানা যায় যে এমনকী ১৬৭৪ সালেও ল্য মালাদ ইমাজিনের (Le Malade Imaginaire) নাটকে ভেরসাই এর উদ্যানে দৃশ্যপটের অন্তর্ভুক্ত ছিল একটিমাত্র সোফা। পরবর্তীকালে এই নাটকে মঞ্চসজ্জার অন্তর্ভুক্ত হয়েছিল একটি ঘরের চারটি অংশ। তিনটি বিচিত্র বুননে শোভিত পর্দা আর কিছু অত্যাবশ্যকীয় সাজসরঞ্জাম।

মলিয়ের স্বয়ং মঞ্চনির্দেশনায় কী ইঙ্গিত দিয়েছেন? তাঁর মঞ্চনির্দেশ প্রায়শই অস্পষ্ট: “জনসাধারণের ব্যবহার্য একটি স্থান, একটি রাস্তা, একটি চারমাথার মোড়, একটি হলঘর…”। লে প্রেসিউজ্ রিদিকিউল (Les Précieuses Ridicules) নাটকের চরিত্র মাগদেলোঁ বলছেন, “আমরা আমাদের ঘরের বদলে এই বৈঠকখানায় তাঁদের স্বাগত জানাব।” কখনও সখনও দেখতে পাই এইরকম অস্পষ্ট নির্দেশ: “দৃশ্যটি পারি শহরের”, “দৃশ্যটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে আরপাগোঁ’র বাড়িতে” (L’Avare) অথবা “দৃশ্যপট স্প্যানিশ শহর আসতোর্গ এর”। ল মিসঁথ্রোপ (Le Misanthrope) এর ঘটনাপ্রবাহের স্থান একটি কক্ষ যার আসবাব দুটি চেয়ার আর তিনটি বাতি; তারতুফ (Tartuffe) এ পাই দুটি সোফা, কার্পেট ঢাকা একটি টেবিল, দুটি মশাল, লেকোল দে ফাম (Lécole des femmes)এর মঞ্চে দেখা যায় দুটি বাড়ি আর বাকি দৃশ্যের জন্য শহরের আরেকটি স্থান। এই উদাহরণগুলো থেকে বোঝা যায় যে মঞ্চসজ্জার ভূমিকা অত্যন্ত গৌণ, অথচ নাটকের অন্তর্ভুক্ত সুস্পষ্ট নির্দেশের সাহায্যে নাট্যকার মলিয়ের নাট্যনির্দেশকের ভূমিকা পালন করেছেন, অভিনেতাদের অভিব্যক্তি, তাঁদের অঙ্গভঙ্গি, দৃষ্টিভঙ্গি, এমনকী পাঠভঙ্গি — এর কোনো কিছুই এই মহান কমেডি স্রষ্টার দৃষ্টি এড়ায় না।

ওতেল দ্য বুরগোইন এ নাট্যাভিনয়

মলিয়ের এর নাটকে মঞ্চসজ্জা তত গুরুত্বপূর্ণ না হলেও ঘটনাপ্রবাহ এবং অভিনেতাদের অভিব্যক্তি মোটেও তা নয়। স্বয়ং শেক্সপিয়ার মনে করতেন যে উচ্চারিত শব্দই নাটকের ঘটনাপ্রবাহ এবং নাট্যকারের নিজস্ব চিন্তাধারার সম্প্রচারের পক্ষে যথেষ্ট। তবু দেখি যে ক্রমশ মলিয়ের এর নাটকে দৃশ্যমান উপাদান ক্রমশ বাড়তে থাকে। অঁফিত্রিয়োঁ-তে (Amphitryon )মলিয়ের দেখিয়েছেন শহরের মধ্যে একটি চৌকানা প্রাঙ্গণ, একটি ব্যালকনি, বৃহস্পতির রথ। ১৬৬৫ সালে মঞ্চস্থ দোঁ জুয়াঁ-তে (Dom Juan) প্রদর্শিত হয়েছে চিত্তাকর্ষক অস্ত্রশস্ত্রের সম্ভার এবং মঞ্চের অত্যাশ্চর্য সব পরিবর্তন যার অন্তর্ভুক্ত হল একটি অসাধারণ উদ্যান, সমুদ্র ও শিলা, একটি অরণ্য যার গাছপালাগুলো পরে মূর্তিতে পরিণত হয় এবং শেষমেষ ঘনঘন বজ্রপাত ও মেঘগর্জন যেন মঞ্চে আগুন ধরিয়ে দেয়। দৃশ্যমান উপাদানের এই ক্রমাধিক্যের ফলেই ১৮৩৫ সালে গোতিয়ের এর সরল স্বীকারোক্তি:” চোখে দেখা যায় এমন অত্যাশ্চর্য দৃশ্যাবলীর সময়ে এসে গিয়েছে।”

সেই সূচনা। পরবর্তী তিন শতক ধরে ফরাসি থিয়েটারে মলিয়ের এর নাটকের মঞ্চসজ্জা নিয়ে বহু নাট্যনির্দেশক অসংখ্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছেন। মলিয়ের এর মঞ্চ আর সেই চিরাচরিত ধূলিমলিন প্রাসাদের সম্মুখস্থ প্রাঙ্গণেই সীমাবদ্ধ নেই। আজ আশ্চর্য হয়ে দেখি যে মলিয়ের এর অপূর্ব নির্মাণশক্তিসম্পন্ন প্রজ্ঞা একটুও টলে না যখন আলোক ঝলমল মঞ্চে আধুনিক, শৌখিন পোশাকে বিচরণ করে মলিয়ের চরিত্ররা। তখন মনে হয় এই পৃথিবীতে একজনই মলিয়ের।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *